শুভ জন্মদিন আজিজুল হাকিম।।।

মানুষের জীবনে কিছু স্মৃতি হয় ভুলে যেত হয় অথবা বয়ে বেড়াতে হয়, আর সেই স্মৃতিগুলো যদি হয় মধুর তাহলে কেনইবা মানুষ তা বয়ে বেড়াবে না? যখন বাংলাদেশের টেলিভিশন বলতে আমরা জানতাম বিটিভি কে আর কেনইবা না জানবো কারন আমরা যে তখন বিজ্ঞাপন গুলোও গুনে গুনে অপেক্ষা করতাম কাক্ষিত অনুষ্ঠানটি দেখার জন্য। হ্যা বলছিলাম বাংলাদেশের মিডিয়ার স্বর্ণযুগের কথা। আপনারা নিশ্চয়ই শিরোনাম পড়ে তার সাথে এই লেখার মিল খুজতে চেষ্টা করবেন এবং হয়তোবা বলেই ফেলবেন যে আমি কেন ধান ভানতে শিবের গীত শোনাচ্ছি? অবশ্য এর পেছনেও বড় একটা কারন আছে তা হলো আমাদের মাথায় যখন আজিজুল হাকিম শব্দটি আসে তখনই আমরা বাধ্য হই পিছনে ফিরে যেতে কারন তাকে আমরা চিনতাম সেই ছোটবেলায় / কৌশরের প্রিয় বিটিভির মাধ্যমে। তাই স্মৃতিগুলো জড়ানো।।। এখন আসল কথায় ফিরি আজিজুল হাকিম একজন দক্ষ অভিনেতার নাম সেটাতে কারো কোন সন্দেহ নেই তা আমি নিশ্চিত, তবে প্রশ্ন একটাই তাকে নিয়মিত পাওয়াটা বড্ড দায়।।। একজন আজিজুল হাকিম যে নাট্যজগতে হাজারো অভিনেতার আইডল তা বলায় কোন কার্পণ্য চলে না। জেনে নেইঃ আজিজুল হাকিম ১৫ ই মে জন্মগ্রহণ করেন। আজিজুল হাকিম কুমিল্লা জেলার মেঘনা উপজেলার লুটেরচর ইউনিয়নের লুটেরচর গ্রামে জন্মেছিলেন। তিনি প্রকৌশলী আঃ হাকিম ও মহিজুন্নেসা। তিনি ছাত্র জীবন থেকে আরিয়ানাক থিয়েটার গ্রুপে যোগ দেন। তিনি একাধারে টেলিভিশন, মঞ্চ,চলচিত্র অভিনেতা, সমপ্রতি তাকে পরিচালাক হিসেবও দেখা গেছে। অর্জনসমুহঃ জয় জয় দিনা পুরস্কার (১৯৯৪)সাংস্কৃতিক পরিচালক সমিতির পুরস্কার (২০০১, ২০০২, ২০০৩)বাংলাদেশ টেলিভিশন সাংবাদিক পুরস্কার (২০০২)বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক সাংবাদিক ফোরাম পুরস্কার (২০০৩)বাংলা টিভি ইউকে লিঃ পুরস্কার (২০০৪) জন্মদিনে জাতির এই ক্রান্তিকালে শুভেচ্ছা এবং ভালোবাসা রইলো। তার সাথে রইলো হাজরো দর্শেকের আকাঙ্ক্ষা তাকে যেন নিয়মিত কাছে পায় সেই দোয়া। শুভ জন্মদিন

Post a Comment

0 Comments