খোঁপা পর্ব ২

অনিক দুরে বসে বসে ভাবতেছে জাসিয়া তাকে কত ভালোবাসে, কত দারুন সময় কাটে ও পাশে থাকলে আসলে জাসিয়া না থাকলে ওর লাইফটা এলোমেলো হয়ে যেত।।।।।।।।এরকম ভাবতে ভাবতে কখন যে ৪৫ মিনিট পেড়িয়ে গেল অনিক তা খেয়ালই করলো না। কিন্তু বিষয়টা হচ্ছে জাসিয়া কে নিয়ে ও সেই কখন গেল কিন্তু এখনও ফেরেনি কেন তাহলে কি কোন বিপদ হলো?এই ভেবে সেখানে গিয়ে দেখে কোথাও জাসিয় নেই কাউন্টারের লোকটা বলেছে ২০ মিনিট আগেই নাকি চলে গেছে। ও সাথে সাথে জাসিয়াকে ফোন দিলো ধরলো না। এভাবে করতে করতে ৬১৭ বার ফোন দিয়েছে কিন্তু ধরে নি। অনিক তখন ক্লিয়ার হলো জাসিয়া ওকে মিথ্যা বলেছে কিন্তু এটার কি দরকার ছিলো।জাসিয়ার সাথে কোন সম্পর্ক না রাখার সিদ্ধান্ত স্থির করে শেষ ম্যসেজ করলো,,,,,,,,,(তুমি আজ করলে তা অামার ভাবনাতে ছিলো না আর কোন সম্পর্ক নেই আমাদের। অার তোমা ক্ষমা করতে পারবো না। ভালো থেকো।)
এই বলে সে ফোন বন্ধ করে অনেকগুলো ঘুমের ওষুধ খেয়ে ঘুমিয়ে পড়লো।তিন দিন পর তার জ্ঞান ফিরলো তখন তিনি নিজেকে আবিষ্কার করলো হাসপাতালের বিছানায়।তার পাশে তার মা বসে আছে।সেদিনই অনিক সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলো এবং ৫,৬ দিন পর সম্পুর্ন সুস্থ হয়ে ফোনটা অন করলো। সাথে সাথে তার মোবাইলে ৩২৬ টি ফোন এবং একটি এস এম এসের নটিফিকেশন চলে এলো এটা আর কেউ না জাসিয়াই।জাসিয়া অনিককে বার বার ফোন দিয়েছে কিন্তু ধরে নি কারন তখন সে অজ্ঞান ছিলো আর শেষ ম্যাসেজটা করলো।।।।।।।  অনিক মোবাইলে ম্যাসেজটা পড়তে লাগলো।।।।।।। জাসিয়াঃজানি তুমি আমাকে অনেক ভালোবাসো তাই তোমাকে ঠকাতে পাড়লাম না।অামি তোমার রাগ মাখা মুখটা দেখার জন্য মাঝে মাঝে খোঁপা করতাম না। বিশ্বাস করো আজ আমি ইচ্ছা করে করিনি বাধ্য ছিলাম তাই।তাও তোমাকে না মানাতে পেরে চলে গেলাম খোঁপা করতে।আশেপাশে তেমন ভালো যায়গা না পেয়ে পাবলিক টয়লেটে গিয়ে চুল ঠিক করবো ভেবে ঢুকেছিলাম। তখনও মনে ছিলো না যে আমি নারী, আমি যে শুধু ভোগ্যপন্য।আমি দরজা বন্ধ না করেই চুল ঠিক করতে লাগলাম হঠাৎ পিছন থেকে একটা শরীর আমাকে চেপে ধরলো আমি কিছু বুঝতে পারার আগেই আমার সাথে যে ঘটনাটি ঘটে আমি তা জীবনে কল্পনায়ও কল্পনা করিনি।আমি নিজেকে সেই মানুষের মতো দেখতে পশুর হাত থেক অনেকবার  বাঁচার চেষ্টা করেছিলাম কিন্তু পারিনি।আমি তোমাকে না বলেই চলে এসেছি কারন আমার মাথা কাজ করতেছিলো না।আর শুধু বারবার মনে একটা কথা ভাসতেছিলো সে ও তো কোন মেয়ের বাবা তার বয়সও তো আমার বাবার মতো।আমি চাইলে এই সমাজে বাঁচতে পারতাম এবং দিব্যি চলতে পারতাম কিন্তু আমি যে কিছুতেই তোমাকে ঠকাতে পারবো না তাই চলে গেলাম  এই কিছু দেখতে মানুষের মতো পশুদের পৃথিবী থেকে।আমাকে মাফ করে দিও আর হ্যা সবাইকে বলো আমাকে যেন দাফন করার সময় চুলে খোপা করেই দাফন করে।।।।।।।।

Post a Comment

0 Comments